আবারও শৈত্যপ্রবাহ শুরু বিস্তৃত হবে অনেক এলাকায়

ডিসেম্বরের পর আবারও শুরু হয়েছে শৈত্যপ্রবাহ। সোমবার ৬ জানুয়ারি থেকে রাজশাহী, পাবনা, চুয়াডাঙ্গা, কুড়িগ্রাম ও যশোর জেলা এবং এগুলোর আশপাশের অঞ্চলের ওপর দিয়ে শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। রাতে তাপমাত্রা আরও ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমে যাবে। ফলে তা আরও বেশ কিছু এলাকায় বিস্তৃত হতে পারে। উত্তর পশ্চিম দিক থেকে আসা কনকনে ঠা-া বাতাসের গতি হবে ঘণ্টায় ৬ থেকে ১২ কিলোমিটার বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। তবে ঢাকায় শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা নেই।

গতকাল সকালের দিকে ঢাকার তাপমাত্রা কিছুটা বেড়ে যায়। দুপুরের দিকে ঝাঁঝালো গরমের অনুভূতিও পায় নগরবাসী। কিন্তু, দুপুরের পর আবার নেমে যায় তাপমাত্রা। সন্ধ্যার পর শুরু হয়েছে কনকনে ঠা-া বাতাস। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, গতকাল রাত থেকে আগামীকাল দুপুর পর্যন্ত আবহাওয়া এমনই থাকবে। দুপুরের দিকে সূর্য উঠলেও আকাশ মেঘলা থাকার ফলে তাপমাত্রার খুব বেশি পরিবর্তন হবে না। যদিও ঢাকার বাইরে শৈত্যপ্রবাহ শুরু হলেও ঢাকায় এর প্রভাব পড়বে না। তবে কনকনে ঠা-া বাতাসে জীবন কিছুটা গতি হারাতে পারে। বুধবার থেকে তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে বলে জানা যায়।

গতকাল দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল দিনাজপুর ও রাজশাহীতে ৮ দশমিক ৮। পূর্বদিন যা ছিল তেঁতুলিয়ায় ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিকে ঢাকায় গতকাল তাপমাত্রা কমেছে প্রায় তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩ দশমিক ৫, যা পূর্বদিন ছিল ১৬ দশমিক ৩। ময়মনসিংহে কমেছে ৫ ডিগ্রি, গতকাল ছিল ১০ দশমিক ৬, যা পূর্বদিন ছিল ১৫ দশমিক ২; চট্টগ্রামে কমেছে দুই ডিগ্রি, গতকাল ছিল ১৬ দশমিক ১, পূর্বদিন ছিল ১৮; সিলেটে কমেছে এক ডিগ্রি, গতকাল ছিল ১৪ দশমিক ৪, পূর্বদিন ছিল ১৫; রাজশাহীতে দ্বিগুণ কমেছে, গতকাল ছিলো ৮ দশমিক ৮, পূর্বদিন ছিল ১৫; রংপুরে কমেছে দুই ডিগ্রি, গতকাল ছিল ১১, পূর্বদিন ছিল ১৩ দশমিক ৮; খুলনায় কমেছে তিন ডিগ্রি, গতকাল ছিল ১২, পূর্বদিন ছিল ১৫ দশমিক ৫ এবং বরিশালে কমেছে তিন ডিগ্রি, গতকাল ছিল ১২ দশমিক ৪, পূর্বদিন ছিল ১৫ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

অন্যদিকে বৃষ্টি কমে এলেও ঢাকার কিছু অঞ্চলে মধ্যরাতে, টাঙ্গাইলে, ময়মনসিংহে, নেত্রকোণায়, কুমিল্লায়, সিলেটে, শ্রীমঙ্গলে, রাজশাহীতে, বগুড়ায় বৃষ্টির খবর পাওয়া গেছে।

আবহাওয়ার ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ অবস্থান করছে। এই লঘুচাপের প্রভাবে রাজশাহী, পাবনা, যশোর ও চুয়াডাঙ্গা জেলাগুলোর ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে, এটা অব্যাহত থাকতে পারে এবং আরও এলাকায় বিস্তৃত হতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। সারাদেশের রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে। দিনের তাপমাত্রা আবার ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস বাড়তে পারে।

আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন বলেন, গতকাল থেকে বেশ কিছু এলাকায় শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। আরও এলাকায় এই প্রবাহ বয়ে যেতে পারে। ঢাকা বিভাগের মধ্যে টাঙ্গাইলে শৈত্যপ্রবাহের শঙ্কা রয়েছে। তিনি বলেন, আজ দিনের বেলা আকাশ মেঘলা থাকবে। রাতের বেলা তাপমাত্রা আরও কিছুটা কমতে পারে। বুধবার পর্যন্ত এই আবহাওয়া থাকবে। এরপর তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। তবে দুই একদিন পর আবার তাপমাত্রা নেমে যেতে পারে বলে তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেন।

সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন।